| |

ময়মনসিংহ বিভাগের শ্রেষ্ঠ শিক্ষক নূরুজ্জামান

গফরগাঁও প্রতিনিধি, ময়মনসিংহ:  ২০১৮ সালে জেলার পর ময়মনসিংহ বিভাগেরও শ্রেষ্ঠ মাধ্যমিক শ্রেণি শিক্ষক নির্বাচিত হয়েছেন গফরগাঁওয়ের মো. নূরুজ্জামান। খায়রুল্লাহ সরকারি বারিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক মো. নূরুজ্জামান। তিনি গফরগাঁও খায়রুল্লাহ সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক।

 

শিক্ষা মন্ত্রনালয়, মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপÍর কর্তৃক জাতীয় শিক্ষা সপ্তাহ-২০১৮ উদযাপন উপলক্ষে বিভাগীয় পর্যায়ে তাকে ২০১৮ সালের ময়মনসিংহ বিভাগের শ্রেষ্ঠ শ্রেণি শিক্ষক নির্বাচিত করা হয়।এর আগে তিনি গফরগাঁও উপজেলা ও ময়মনসিংহ জেলার শ্রেষ্ঠ শ্রেণি শিক্ষক নির্বাচিত হন।

 

তিনি ২০১৭ সালেও ময়মনসিংহ বিভাগের শ্রেষ্ঠ শিক্ষক নির্বাচিত হয়েছিলেন। এছাড়াও একাধারে তিনবার ময়মনসিংহ জেলার শ্রেষ্ঠ শিক্ষক এবং পাঁচবার উপজেলার শ্রেষ্ঠ শিক্ষক নির্বাচিত হয়েছিলেন। তিনি ধর্ম মন্ত্রনালয় ও ইসলামিক ফাউন্ডেশন কর্তৃক ২০০৮ সালে ময়মনসিংহ জেলার শ্রেষ্ঠ ইমাম নির্বাচিত হন।

 

মো. নূরুজ্জামান ২০০৫ সালে খাগড়াছড়ি সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে যোগদানের মধ্য দিয়ে শিক্ষকতা শুরু করেন। সরকারী আলিয়া মাদরাসা ঢাকা থেকে কামিল (হাদিস) কৃতিত্বের সাথে প্রথম শ্রেণিতে উত্তীর্ণ হন। এ ছাড়া জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগ থেকে প্রথম শ্রেণিতে বিএ (সম্মান) ও মাস্টার্স এবং সরকারি টিচিার্স ট্রেনিং কলেজ ময়মনসিংহ হতে বিএড ডিগ্রী অর্জন করেন।

 

তিনি দৈনিক, সাপ্তাহিক ও মাসিক পত্রিকায় বিভিন্ন বিষয়ে নিয়মিত লেখালেখি করেন। তিনি নিয়মিত ডিজিটাল কন্টেন্ট তৈরি ও শ্রেণি কক্ষে মাল্টিমিডিয়ার মাধ্যমে শ্রেণি কার্যক্রম পরিচালনা করেন। মো. নূরুজ্জামান উপজেলা আইসিটি ট্রেনিং ও রিসোর্স সেন্টারের একজন আইসিটি প্রশিক্ষক ও গফরগাঁও উপজেলা আইসিটি কমিটির সভাপতি। বর্তমানে  কারিকুলাম বিস্তরণ ২০১২ এর মাস্টার ট্র্ইেনারের দায়িত্ব পালন করেন।

 

মো. নূরুজ্জামান ১৯৮২ সালে গফরগাঁও উপজেলার বাসুটিয়া গ্রামে জন্ম গ্রহণ করেন। তার বাবা মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ মো. আবদুছ ছালাম অবসরপ্রাপ্ত উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা ও মাতা নূরজাহান বেগম গৃহিনী।