| |

রবি’র মুনাফা আশাব্যাঞ্জক হয়নি

আইটি ডেস্ক

নেটওয়ার্ক বিস্তারে ক্রমাগত বিনিয়োগ এবং অপরিবর্তিত কর নীতির কারণে বছর শেষের আর্থিক ফলাফল নিয়ে খুব বেশি আশাবাদী নয় রবি। তবে দেশের টেলিযোগাযোগ খাতের প্রথম একীভূতকরণকে গ্রাহকরা স্বাগত জানিয়েছেন। চলতি বছরের দ্বিতীয় প্রান্তিকে (এপ্রিল-জুন) একীভূত কোম্পানিতে ৩৪ লাখ নতুন গ্রাহক যোগ হওয়া সে দৃষ্টিভঙ্গিরই প্রতিফলন। সব মিলিয়ে এখন রবি’র মোট গ্রাহক সংখ্যা ৩ কোটি ৯৬ লাখ।

২০১৭ সালের দ্বিতীয় প্রান্তিকে ভয়েস ও ডেটা সেবায় রাজস্ব বৃদ্ধি পেলেও একীভূতকরণের পর নেটওয়ার্ক বিস্তারে ব্যাপক বিনিয়োগ (৫৪০ কোটি টাকা) এবং উচ্চ কর হারের কারণে কোম্পানির রাজস্বের ৪৬ দশমিক ৮ শতাংশ রাষ্ট্রীয় কোষাগারে জমা দেয়ায় একীভূত কোম্পানি রবি’র মুনাফা হয়েছে সমান্য। উচ্চ করারোপ দেশের টেলিযোগাযোগ খাতকে কতটা হুমকিতে ফেলতে পারে এ ফলাফলে সেটিরই প্রতিফলন ঘটেছে।

একীভূত হওয়ার পর অন-নেট সুবিধার মাধ্যমে রবি ও এয়ারটেলের গ্রাহকরা সাশ্রয়ী মূল্যে মানসম্মত ও বিস্তৃত নেটওয়ার্ক উপভোগ করছেন। চলতি বছরের দ্বিতীয় প্রান্তিকে রবি’তে ৩৪ লাখ নতুন গ্রাহক যোগ হওয়ায় বর্তমানে রবি’র মোট গ্রাহক সংখ্যা ৩ কোটি ৯৬ লাখে দাঁড়িয়েছে, যা দেশের মোট মোবাইল ফোন গ্রাহকের ২৯ দশমিক ২ শতাংশ। একীভূতকরণের ফলে গত বছরের একই সময়ের তুলনায় ভয়েস সেবা থেকে রাজস্ব ৩৬ দশমিক ৫ শতাংশ এবং ডেটা সেবা থেকে রাজস্ব ১০৬ দশমিক ৯ শতাংশ বৃদ্ধি পাওয়ায় সার্বিক রাজস্ব বৃদ্ধির পরিমাণ ৩৫ দশমিক ১ শতাংশ। ৩.৫জি ডেটা ব্যবহার বৃদ্ধির জন্য নেটওয়ার্ক খাতে উল্লেখযোগ্য বিনিয়োগ এবং সাশ্রয়ী মূল্যে গ্রাহক-বান্ধব ডেটা অফারের ফলে ইন্টারনেট থেকে রাজস্ব বৃদ্ধি পেয়েছে। ২০১৭ সালের দ্বিতীয় প্রান্তিকে রবি’র পরিচালন মুনাফার (ইবিটিআইডিএ) পরিমাণ ১৫ দশমিক ৯ শতাংশ যা গত বছরের একই সময়ের তুলনায় কম। একীভূতকরণের ফলে এয়ারটেলের মুনাফা কম হওয়ায় এমনটি হয়েছে। এ সময় রবি’র কর পরবর্তী মুনাফা ৪ দশমিক ১ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে যা টাকার অঙ্কে ৬৮ কোটি ৫০ লাখ টাকা।

রবি’র ম্যানেজিং ডিরেক্টর অ্যান্ড সিইও মাহতাব উদ্দিন আহমেদ বলেন, “রবি-এয়ারটেল নেটওয়ার্ক একীভূতকরণ এবং গ্রাহকদের সেরা সেবা প্রদানের চ্যালেঞ্জ নিয়ে ২০১৭ সালের শুরু। এ আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশের সময় আমরা রবি ও এয়ারটেল নেটওয়ার্কের একীভূতকরণ কার্যক্রম শেষ করার মাধ্যমে দেশের এক নম্বর ডিজিটাল নেটওয়ার্ক গড়ে তোলার শেষ প্রান্তে রয়েছি।’’

রবি-এয়ারটেল নেটওয়ার্কে অব্যাহত বিনিয়োগ এবং কার্যকর একীভূতকরণ প্রক্রিয়ার মাধ্যমে আমরা ঘরের ভেতরে ও বাইরে শক্তিশালী নেটওয়ার্ক প্রদান করছি যার ফলে গ্রাহকরা আরো মানসম্মত ডেটা সেবা উপভোগ করছেন। এ ব্যাপারে তাদের কাছ থেকে পাওয়া ইতিবাচক সাড়া আমাদের অনুপ্রেরণা যুগিয়েছে। কারণ গ্রাহকদের পরিপূর্ণ ডিজিটাল লাইফস্টাইল সেবা প্রদানই আমাদের লক্ষ্য।