| |

এবার শুরু হবে ঢাকায় ফেরার যুদ্ধ

নিজস্ব প্রতিবেদক

নাড়ির টানে ঈদ করতে যারা রাজধানী ছেড়েছিলেন তাদের অনেকেই ফিরতে শুরু করেছেন চিরচেনা সেই ঢাকায়। ঈদে বাড়ি যাওয়া মানে যুদ্ধ করা। ছুটি শেষে ঢাকায় ফিরতেও যুদ্ধ করতে হয় নগরবাসীকে। সেই যুদ্ধ আজ থেকেই শুরু হয়ে গেছে। তবে এখনো ঢাকায় ফেরার সেই যুদ্ধ পুরোপুরি জমে ওঠেনি। এবার ঈদে ঘরমুখো যাত্রীদের বড় কোনো দুর্ভোগে পড়তে হয়নি। ফেরার সময়ও কোনো দুর্ভোগে পড়তে হবে না এমনটাই আশা করছেন সংশ্লিষ্টরা।

সোমবার সকাল থেকেই কমলাপুর রেলস্টেশন, সায়েদাবাদ, গাবতলী ও মহাখালী বাস টার্মিনাল এবং সদরঘাট লঞ্চ টার্মিনালে ঈদফেরা মানুষের মোটামুটি ভিড় চোখে পড়েছে। তবে এবার সপ্তাহের শুরুতেই ঈদ হওয়ায় অনেকে ফিরবেন সপ্তাহ শেষ করে। আগামী শনিবারের মধ্যে রাজধানী আবার চিরচেনা রূপে ফিরবে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

সোমবার থেকে সরকারি-বেসরকারি অফিস খোলা থাকায় ঢাকায় ফিরেই কর্মব্যস্ত হয়ে পড়ছেন অনেকেই। তবে স্কুল, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়সহ অনেক প্রতিষ্ঠান এখনো বন্ধ। অনেক বেসরকারি অফিসও এখনো খুলেনি। যেসব অফিস খোলা হয়েছে সেখানেও বিরাজ করছে ছুটির আমেজ। প্রশাসনের প্রাণকেন্দ্র সচিবালয়সহ সরকারি অফিসগুলোতে উপস্থিতির সংখ্যা কম।

প্রতিবারের মতো এবার ঈদেও রাজধানী ছেড়েছে ৫০ লাখের বেশি মানুষ। এজন্য রাজধানী আগের চেহারায় ফিরতে আরও কয়েক দিন লাগবে। ঢাকা আজও অনেকটা ফাঁকা। যারা বিভিন্ন প্রয়োজনে বেরিয়েছেন তারা রাস্তায় পেয়েছেন চলার স্বস্তি।

পুরান ঢাকার আসলাম সিকদার ঢাকাটাইমসকে বলেন, ‘আমি এই টুকুন কবার পারি ঢাকার সড়কগুলা আরও দুই-একদিন ফাঁকা পাইবেন। ঈদ আইলে ঈদের আনন্দের চাইতে রাস্তায় চলতে যে কেতো শান্তি লাগে হেইডা বুজাবার পারুম না। আবার সেই যানজট সুরু অইয়া যাইবোগা।’

ঈদ আনন্দ শেষে সোমবার সকালে সপরিবারে মহাখালী বাস টার্মিনাল হয়ে ময়মনসিংহ থেকে ঢাকায় ফিরেছেন মোমেন আলী। ভালোয় ভালোয় রাজধানীতে ফিরে আসতে পারায় তিনি আল্লাহর শোকরিয়া আদায় করেন। তিনি বলেন, ‘অফিস খোলা, তাই প্রিয়জনদের রেখে আবার চলে আসতে হলো নাগরিক জীবনে।’

রাজধানীতে এখনো ঈদের আমেজ কাটেনি। বেশির ভাগ দোকান-পাট, হোটেল-রেস্তোরাঁ এখনো বন্ধ রয়েছে। আবার যারা ঈদের আগে বাড়ি যেতে পারেননি তাদের অনেকে ঢাকার বাইরে যাচ্ছেন।